আবারো শুরু হয়েছে প্রো-অফার! নামমাত্র মূল্যে ফ্রিল্যান্সিং কোর্স করুন ঘরে বসেই। বিস্তারিত

Pay with:

স্ট্রোক থেকে সতর্ক হবেন যেভাবে

আগে ধারণা করা হতো, বেশি বয়সী ব্যক্তিরাই স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়। যদিও এখন সে ধারণা ভুল বলে প্রমাণিত হয়েছে। স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার ক্ষেত্রে বয়স এখন আর সেভাবে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নয়। বহু ব্যক্তিই ৩০ বা ৪০ বছর বয়সে স্ট্রোকে আক্রান্ত হচ্ছেন। আর তাই স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে কিছু পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন সবারই। এ লেখায় রয়েছে স্ট্রোক থেকে বাঁচতে কিছু পরামর্শ।
১. শারীরিক পরিশ্রম
আপনি যদি প্রচুর শারীরিক পরিশ্রম করেন তাহলে স্ট্রোকের ঝুঁকি কমবে। তবে শুধু শারীরিক পরিশ্রমিই নয় এর ঝুঁকি পুরোপুরি দূর করার জন্য প্রয়োজন উপযুক্ত খাবার খাওয়া ও সুস্থ জীবনযাপন করা। আপনার যদি ধূমপানের অভ্যাস থাকে তাহলে স্ট্রোকের ঝুঁকি অনেক বাড়বে। এ ছাড়াও ডায়াবেটিস, স্থূলতা, হাইপারটেনশন ইত্যাদি থাকলেও স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়বে।
২. সঠিক খাদ্যাভ্যাস
অপরিমীত কিংবা অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ায়। এ কারণে উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার, উচ্চ লবণ ও চিনিযুক্ত খাবার, জাংক ফুড হিসেবে পরিচিত খাবার, শিল্প কারখানায় প্রক্রিয়াজাত খাবার, উচ্চমাত্রায় তৈলাক্ত খাবার ইত্যাদি ত্যাগ করা উচিত। তার বদলে তাজা খাবার ও সবজি ও ফলমূল বেশি করে খেতে হবে। তাছাড়া দৈনিক পর্যাপ্ত (৮-১০ গ্লাস) পানি পান করা উচিত।
৩. স্ট্রোকের লক্ষণগুলো জেনে রাখুন
স্ট্রোকের কয়েকটি লক্ষণ রয়েছে, এগুলো জেনে রাখলে হঠাৎ এতে আক্রান্ত হলে দ্রুত চিকিৎসা নেওয়া সম্ভব। এগুলো হলো-
-হঠাৎ বিনা কারণে প্রচণ্ড মাথাব্যথা,
-হঠাৎ অসাড়তা, দুর্বলতা বা প্যারালাইসিসের লক্ষণ প্রকাশ। এতে আক্রান্ত হতে পারে মুখ, বাহু, পা কিংবা দেহের যে কোনো একটি অংশ,
-হঠাৎ চোখের দৃষ্টি কমে যাওয়া কিংবা দেখতে না পাওয়া। একটি চোখেও হতে পারে এ অবস্থা,
-হাঁটতে অসুবিধা হওয়া বা দেহের ভারসাম্য বজায় রাখতে সমস্যা হওয়া,
-কথাবার্তা অস্পষ্টভাবে উচ্চারণ করা কিংবা একেবারেই বলতে না পারা,
– হঠাৎ অচেতন হওয়া।
এসব লক্ষণ দেখে যদি মনে হয় কেউ স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়েছে তাহলে তাকে যত দ্রুত সম্ভব হাসপাতালে বা চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যেতে হবে।
৪. স্ট্রোকের কারণ জানুন
স্ট্রোকের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি কারণের মধ্যে রয়েছে স্থূলতা, ধূমপান, হাইপারটেনশন, উচ্চমাত্রায় কোলস্টেরল, মদ্যপান বা অ্যালকোহল গ্রহণ, হৃদরোগ, ডায়াবেটিস ও পারিবারিক ইতিহাস। এক্ষেত্রে স্থূলতার কারণে সবচেয়ে বেশি বা ৪৯ শতাংশ মানুষ স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়। অন্যদিকে ধূমপানে ৪৬ শতাংশ ও হাইপারটেনশনের কারণে ৪০ শতাংশ মানুষ স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়। সুস্থ জীবনযাপনের মাধ্যমে এ কারণগুলোর অনেকগুলোই দূর করা যায়।

   
   

0 responses on "স্ট্রোক থেকে সতর্ক হবেন যেভাবে"

Leave a Message

Certificate Code

সবশেষ ৫টি রিভিউ

eShikhon Community
top
© eShikhon.com 2015-2022. All Right Reserved